গফরগাঁওয়ে অপহৃত স্কুলছাত্র শান্ত টাঙ্গাইল থেকে উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ
ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে অপহৃত স্কুলছাত্র শান্ত মিয়া (১৪) কে টাঙ্গাইল জেলার সখিপুর জেলখানা মোড় এলাকা থেকে গত সোমবার রাতে উদ্ধার করেছে পুলিশ। সে প্রায় ৪ মাস আগে গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানাধীন টাঙ্গাব ইউনিয়ন থেকে অপহৃত হয়। এ সময় অপহরণ মামলার প্রধান আসামি শরমিতাকে (২৮)কে গ্রেফতার করে পুলিশ। শান্ত মিয়া টাংগাব ইউনিয়নের বাশিয়া গ্রামের সৌদি প্রবাসী আতাউর রহমান কাজলের ছেলে। এবং দত্তেরবাজার ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্র। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উদ্ধার হওয়া স্কুলছাত্র শান্ত’র জবানবন্দি গ্রহণের জন্য ময়মনসিংহ জেলা আদালতে ও গ্রেফতারকৃত প্রধান আসামি শমরিতাকে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছে পাগলা থানা পুলিশ।
থানা পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ২২ জুলাই সকালে টাঙ্গাব ইউনিয়নের বামনখালি গ্রামের নানার বাড়ি থেকে বাঁশিয়া গ্রামে নিজেদের বাড়িতে আসার সময় শান্ত মিয়া অপহরণের শিকার হয়। এ ঘটনায় পরিবারের লোকজন বিভিন্ন স্থানে তার খোঁজখবর করে খোঁজ পায়নি। এ ঘটনায় তার মা গত ২৩ জুলাই পাগলা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করে। ছেলের সন্ধান না পেয়ে গত ২৮ জুলাই ময়মনসিংহ জেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিশাত জাহান চৌধুরীর ৭ নং আমলী আদালতে সে নালিশী দরখাস্ত করেন। গত ৪ আগষ্ট আদালত দরখাস্তটি এফআইআর হিসেবে গণ্য করে মামলা রুজু করার জন্য পাগলা থানার ওসিকে নির্দেশ দেন। পরে গত ৯ আগষ্ট বাঁশিয়া গ্রামের খোকা মিয়া, তার মেয়ে শরমিতা (২৮) ও পাশ্ববর্তী বিরই গ্রামের হাবিবুর রহমান (৪০) ও অজ্ঞাতনামা আরো ২/৩ জনকে আসামি করে পাগলা থানায় অপহরণ মামলা দায়ের হয়।
পাগলা থানার ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে অপহৃত শান্তকে উদ্ধার ও মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
মোঃরমিজ উদ্দিন,সম্পাদক ও প্রকাশক/খবর বিশ্ব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *